tech

কম্পিউটারে এন্টিভাইরাস ব্যবহারের সুবিধা সমূহ

ভাইরাস কে বাধা প্রদান করার জন্য যে বিশেষ উন্নত মানের প্রোগ্রাম ব্যবহার করা হয়ে থাকে সেই প্রোগ্রাম গুলো কে বলা হয়ে থাকে, এন্টি ভাইরাস। তবে এই এন্টিভাইরাসে ব্যবহার করা প্রোগ্রাম গুলো কিন্তু বিভিন্ন ধরনের সফটওয়্যার এর মাধ্যমে ইমপ্লিমেন্ট করা হয়ে থাকে। এই আর্টিকেলের আলোচ্য বিষয় কম্পিউটারে এন্টিভাইরাস ব্যবহারের সুবিধা সমূহ নিয়ে। 

আর যখন আপনি সেই সফটওয়্যার গুলো আপনার কম্পিউটার ইন্সটল করবেন। তখন সেই সফটওয়্যার গুলো কে বলা হবে, কম্পিউটার এন্টিভাইরাস। কেননা এই ধরনের সফটওয়্যার গুলো শুধুমাত্র কম্পিউটার এর মধ্যে ইন্সটল করা যায়। এবং আপনি যদি মোবাইলের মধ্যে এই ধরনের এন্টিভাইরাস ব্যবহার করতে চান। তাহলে আপনাকে আলাদা ভাবে অ্যাপস ইন্সটল করতে হবে।

এন্টিভাইরাস ব্যবহারের সুবিধা

যখন আপনি আপনার কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ এর মধ্যে এন্টিভাইরাস ব্যবহার করবেন। তখন আপনি বিশেষ কিছু সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। আর সেই সুবিধা সম্পর্কে জেনে নেয়াটা আপনার জন্য অতি গুরুত্বপূর্ণ। যেমন,

  1. আপনার কম্পিউটারে থাকা সমস্ত ডাটা সুরক্ষিত থাকবে।
  2. আপনার কম্পিউটারের ডাটা গুলো চুরি হওয়ার হাত থেকে বেঁচে যাবে।
  3. যখন আপনি আপনার কম্পিউটার দিয়ে অনলাইনে লেনদেন করবেন। তখন কোন প্রকার ভয় থাকবে না।
  4. যে কোনো ধরনের সফটওয়্যার কে আপনার কম্পিউটারে ব্যবহার করতে পারবেন।
  5. আপনার কম্পিউটারে থাকা যে প্রসেসর রয়েছে। সেটি অনেক দ্রুত কাজ করবে।
  6. আপনার কম্পিউটার স্লো কিংবা হ্যাং হওয়ার পরিমাণ অনেকটাই কমে যাবে।
See also  বাংলাদেশের মোবাইল কোড নাম্বার | Bangladesh Country Code

মূলত এন্টিভাইরাস ব্যবহারের সুবিধা গুলো নিয়ে উপরে আলোচনা করা হয়েছে। তবে এন্টিভাইরাসের আরও বেশকিছু সুবিধা রয়েছে। যে গুলো আপনি ব্যবহার করার সময় নিজে থেকেই বুঝতে পারবেন।

এন্টিভাইরাস কিভাবে কাজ করে?

এতক্ষণের আলোচনায় আপনি জানতে পারলেন যে, অ্যান্টিভাইরাস কি। এবং কম্পিউটার এন্টিভাইরাস কি। তো এখন অনেকের মনে একটি প্রশ্ন জেগে থাকতে পারে। আর সেই প্রশ্ন টি হল যে, এই এন্টিভাইরাস কিভাবে কাজ করে। আর আপনার মনে যদি এই ধরনের প্রশ্ন জেগে থাকে। তাহলে আপনাকে বলব যে, একটি এন্টিভাইরাস মূলত বিভিন্ন ধরনের কাজ করে থাকে।

যেমন, প্রথমত এই এন্টিভাইরাস গুলো প্রতিনিয়ত আপনার কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ কে স্ক্যান করবে। যাতে করে আপনার শখের কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ এর মধ্যে কোন ভাবেই ভাইরাস প্রবেশ করতে না পারে। এর পাশাপাশি যদি স্ক্যান করার পরে আপনার কম্পিউটারের মধ্যে ভাইরাস শনাক্ত হয়। তাহলে তাৎক্ষণিক ভাবে এই অ্যান্টিভাইরাস গুলো উক্ত ভাইরাস কে ডিলেট করে দিবে।

কিন্তু যদি কোনো কারণে অটোমেটিকলি ভাবে সেই ভাইরাস কে এন্টিভাইরাস ডিলিট করতে না পারে। তাহলে আপনাকে নোটিফিকেশন প্রদান করবে যে। আপনার ওই ডিভাইসে ভাইরাস ডিটেক্ট হয়েছে। আর যখন আপনি জানতে পারবেন যে। আপনার কম্পিউটারের মধ্যে ভাইরাস প্রবেশ করেছে। তখন আপনি নিজে থেকেই উক্ত ভাইরাস গুলো কে ডিলিট করে দিতে পারবেন। মূলত এভাবেই এন্টিভাইরাস কাজ করে থাকে। আশাকরি আপনি এন্টিভাইরাস ব্যবহারের সুবিধা সমূহ সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। 

See also  Laptop নাকি Desktop? কোনটা কিনবেন? (Laptop vs Desktop)

আরো পড়ুনঃ ১০ টি কম্পিউটার এন্টিভাইরাসের নাম

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button